New Voter ID card Registration

New Voter ID card Registration Online Bangladesh. National ID Card Online Registration link in our website available now. Bangladesh Election Commission offer real chance to apply for Bangladeshi new 18 years old people for Voter ID card or National ID card. Check details of New Voter ID Registration Process from below.

New Voter Registration: Updating of voter list is an ongoing process. For the year 2022, if you are a Bangladeshi citizen, frequently lived in an area and before 1st January 2022 you are 18 or above but not registered as a voter yet, you may register as a voter.Besides, The Citizen who born from 2nd January 1997 to 1st January 2000 can register but they are not treated as a voter until they reach 18. At the time of enrollment you need some papers for Form-2 like,

New Voter ID card (NID) Registration Online

New Voter ID card Registration Online Bangladesh. New Voter ID card Registration Online Bangladesh is a current process of Election Commission. Voter ID card Registration was held before by hand to hand. A number of agents are went ID card holder’s house & they were registration for National ID card. Maximum people of Bangladesh were held by this way but some people were cut down for some reason. They were waiting to register next year. But this year 2022 New Voter ID card holders can registration by online. There are some rules for registration. Such as:-

  • Voter ID card has to be Bangladeshi by birth.
  • Age should be 18 as on 1st January (Thursday) 2022.

NID Card Online Application System

Check Your Voter Id Card Online

NID GOV BD Service login

There are some important documents which are needed to registration. They are given below:-

  • SSC certificate (Age verification certificate)
  • Birth certificate (Age verification certificate)
  • Passport/ Driving License/ TIN (Age verification certificate)
  • Photocopy of Utility bill / house rent receipt/ holding tax receipt (Citizenship verification certificate)
  • Citizenship certificate (as applicable)
  • Photocopy of father, mother, husband/wife ID card (if applicable)

New Voter ID card Registration

New Voter ID card Registration Online process

You can process Voter Registration online correctly. Remember it; if you are existing voters, no need to re-apply through online. And if you registered again then you will be punished. Only 18 years old peole and Overseas or excluded Voters can register through online.

Steps:

  • Please fill in the bland online Registration form step by step with valid information.
  • All information Fill in Bangla Language (Unicode) without your full name.
  • After completing all form fill-up step, please check again your all information.
  • Then make a PDF files to print and submit this file with the required documents on your closest Election office
  • When you submit all file then Election officers will verify your information, they will start process to create your Voter ID

The present Voter ID card or National ID card (NID) valid for 15 years, have the card owners’ names, their parents’ names, date of birth, and specific ID numbers on one side and the residential addresses on the other side.

National ID Card Online Registration

Apply onlineMigration of Voter Area:

Those who already registered as a voter but need to migrate their voter area they have to fill up migration form. These forms have to be sent to concern Upazila/Thana Election Offices for verification. A photocopy of ID card has to be attached with the migration form.

Deletion of Death Voter:

You shall have toinform the respective Upazila/Thana Election Office about death voter for deleting their name from active voter list by filling up Form-12.

Undistributed NID Card delivery:

The voters, who have been registered, but their NID card has not yet been handed over will collect their NID card from respective Upazila/Thana Election Office.

NID card Online Application System FAQ

১। প্রশ্নঃ আমি যথা সময়ে ভোটার হিসেবে রেজিস্ট্রেশন করতে পারিনি। এখন কি করা যাবে?উত্তরঃ আপনি যে কোন সময়ে রেজিস্ট্রেশনের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন।

২। প্রশ্নঃ আমি বিদেশে অবস্থানের কারণে ভোটার রেজিস্ট্রেশন করতে পারিনি, এখন কিভাবে করতে পারবো?উত্তরঃ আপনি যে কোন সময়ে রেজিস্ট্রেশনের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন।

৩। প্রশ্নঃ আমি ২০০৭/২০০৮ অথবা ২০০৯/২০১০ সালে ভোটার রেজিস্ট্রেশন করেছি কিন্তু সেই সময় আইডি কার্ড গ্রহণ করিনি। এখন কিভাবে আইডি কার্ড পেতে পারি?

উত্তরঃ উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিস থেকে আপনার কার্ড সংগ্রহ করতে পারবেন। যদি সেখানেও না পাওয়া যায় তাহলে অনলাইনে রিইস্যু করার জন্য আবেদন করতে পারবেন। আবেদন অনুমোদিত হওয়ার পর আপনার মোবাইলে এসএমএস পাঠানো হবে। এরপর অনলাইন থেকে আপনার এনআইডি কার্ড এর কপি ডাউনলোড করে নিন।

৪। প্রশ্নঃ ভোটার তালিকার নামের সাথে বিভিন্ন খেতাব, পেশা, ধর্মীয় উপাধি, পদবী ইত্যাদি যুক্ত করা যাবে কিনা?

উত্তরঃ ভোটার তালিকার ডাটাবেজে শুধুমাত্র নাম সংযুক্ত করা হয়, কোন উপাধি বা অর্জিত পদবী তাতে সংযুক্ত করার অবকাশ নাই।

৫। প্রশ্নঃ কোথা হতে আইডি কার্ড সংগ্রহ করা যাবে?

উত্তরঃ অনলাইন থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন অথবা যে এলাকায় ভোটার রেজিস্ট্রেশন করেছেন সেই এলাকার উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিস থেকে আইডি কার্ড সংগ্রহ করা যাবে।

৬। প্রশ্নঃ আমি বিদেশে চলে যাব। আমার কার্ড কি অন্য কেউ উত্তোলন করতে পারবে?

উত্তরঃ অনলাইন থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন।

৭। প্রশ্নঃ কার্ডে ইচ্ছাকৃত ভুল তথ্য দিলে কি হবে?

উত্তরঃ জেল বা জরিমানা অথবা উভয় দন্ডে দণ্ডিত হতে পারে।

৮। জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর ১৩ আবার কারো ১৭ কেন?

উত্তরঃ ২০০৮ এর পরে যত আইডি কার্ড প্রিন্ট করা হচ্ছে বা পুণঃ তৈরি হচ্ছে সে সকল কার্ডের নম্বর ১৭ ডিজিট হয়ে থাকে।

৯। প্রশ্নঃ বিভিন্ন দলিলে আমার বিভিন্ন বয়স/নাম আছে। কোনটা ভোটার রেজিস্ট্রেশনের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে?

উত্তরঃ এসএসসি অথবা সমমানের পরীক্ষার সনদে উল্লেখিত বয়স ও নাম। ভবিষ্যতে ৫ম/৮ম সমাপনী পরীক্ষার সনদ ও গ্রহণযোগ্য হবে। লেখাপড়া না জানা থাকলে জন্ম সনদ,পাসপোর্ট,ড্রাইভিং লাইসেন্স দিয়ে ও আবেদন করা যাবে।

১০। প্রশ্নঃ আঙ্গুলের ছাপ দিয়ে কি ডুপ্লিকেট এন্ট্রি সনাক্ত করা সম্ভব?

উত্তরঃ হ্যাঁ, সনাক্ত করা সম্ভব।

১১। প্রশ্নঃ এক ব্যক্তির পক্ষে কি একাধিক নামে ও বয়সে একাধিক কার্ড পাওয়া সম্ভব?

উত্তরঃ না। একজন একটি মাত্র কার্ড করতে পারবেন। তথ্য গোপন করে একাধিক স্থানে ভোটার হলে কেন্দ্রীয় সার্ভারে আঙুলের ছাপ দ্বারা তা ধরা পড়বে এবং তার বিরুদ্ধে মামলা হবে।

১২। প্রশ্নঃ নতুন ভোটার হওয়ার ক্ষেত্রে কি কি কাগজ পত্রাদি প্রয়োজন?

উত্তরঃ জন্ম নিবন্ধন সনদ, এস.এস.সি বা সমমানের পরীক্ষা পাসের সনদ (যদি থাকে), ঠিকানা প্রমাণের জন্য কোন ইউটিলিটি বিলের কপি, নাগরিক সনদ, বাবা-মা এবং বিবাহিত হলে স্বামী/স্ত্রীর এনআইডি কার্ডের ফটোকপি, পাসপোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স, টিআইএন (TIN) নম্বর (যদি থাকে)।

১৩। প্রশ্নঃ আমি খুব দরিদ্র ও বয়স ১৮ বছরের কম। ১৮ বছরের উপরে বয়স দেখিয়ে একটি আইডি কার্ড পেলে গার্মেন্টেস ফ্যাক্টরিতে বা অন্য কোথাও চাকুরী পেতে পারি। মানবিক কারণে এই পরিস্থিতি বিবেচনা করা যায় কি?

উত্তরঃ না। ১৮ বছর বয়স পূর্ণ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। মানবিক বিবেচনার কোন সুযোগ নেই।

১৪। প্রশ্নঃ আমি ভুলে দু’বার রেজিস্ট্রেশন করে ফেলেছি এখন কি করবো?

উত্তরঃ যত দ্রুত সম্ভব বিষয়টি সংশ্লিষ্ট জেলা নির্বাচন অফিসে লিখিতভাবে ক্ষমা প্রার্থনা জানান। বর্তমানে Finger Print Matching কার্যক্রম চলছে। অচিরেই সকল Duplicate Entry সনাক্ত করা হবে। উল্লেখ্য, যা শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

১৫। প্রশ্নঃ আইডি কার্ড আছে কিন্তু ২০০৮ এর সংসদ নির্বাচনের সময় ভোটার তালিকায় নাম ছিল না। এরূপ সমস্যা সমাধানের উপায় কি?

উত্তরঃ অবিলম্বে এনআইডি রেজিস্ট্রেশন উইং/উপজেলা/জেলা নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করুন।

১৬। প্রশ্নঃ একজনের কার্ড অন্যজন সংগ্রহ করতে পারবে কিনা?

উত্তরঃ অনলাইন থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন।

১৭। প্রশ্নঃ আপনারা বিভিন্ন ফর্মের কথা বলেছেন? এগুলো কোথায় পাওয়া যাবে?

উত্তরঃ এখন সব আবেদন অনলাইনে করতে পারবেন এবং আবেদনের ধরন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ফর্ম অনলাইনে থেকেই সংগ্রহ করতে পারবেন।

১৮। প্রশ্নঃ এই সমস্ত ফর্মের জন্য কোন মূল্য পরিশোধ করতে হয় কি না?

উত্তরঃ না।

I hope you are enjoying this article. Thanks for visiting this website.